প্রচ্ছদ

দিরাইয়ে আ.লীগের প্রতিনিধি সম্মেলন

০৯ অক্টোবর ২০১৮, ১১:১৬

সোনালী সিলেট

দিরাই প্রতিনিধি
আওয়ামী লীগের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তৃণমূলে পৌছে দেওয়ার লক্ষ্যে ও আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে দিরাইয়ে অনুষ্ঠিত তৃণমূল আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি সম্মেলনে জনতার ঢল নেমেছে। সোমবার দুপুরে দিরাই কলেজ রোডস্থ বাগানবাড়ি কমিউনিটি সেন্টার মাঠে এ প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলতাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুবলীগ নেতা মকসুদ আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিনিধি সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি দিরাই শাল্লায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অ্যাডভোকেট অবনী মোহন দাস, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য, সিলেট আইন কলেজের সাবেক ভিপি দিরাই শাল্লায় আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অতিরিক্ত পিপি অ্যাডভোকেট শামসুল ইসলাম, যুক্তরাজ্য জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি মনোনয়ন প্রত্যাশী সামছুল হক চৌধুরী, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ইকবাল হোসেন,জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সদস্য মঞ্জুরুল আলম চৌধুরী, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আজাদুর রহমান, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর চৌধুরী, উপ-প্রচার সম্পাদক হুমায়ুন রশিদ লাভলু, জেলা পরিষদ সদস্য আবু আব্দুল্লাহ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ইয়ামিন চৌধুরী, দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন, রাজানগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিক মিয়া, জগদল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসতিয়াক হোসেন মঞ্জু, শাল্লা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা সোলেমান কবির,দিরাই উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাংবাদিক খালেদ মিয়া, উপজেলা যুবলীগ নেতা মারফত মিয়া, শাল্লা উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি আশীষ দাস, সিলেট জেলা যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জুয়েল, জগদল ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি সালাউদ্দীন সেলিম, রফিনগর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাহবুবুল আলম সোহেল,শাল্লা যুবলীগ নেতা বিপ্লব রায়, যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম, দিরাই উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পারভেজ আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা রুহুল আমিন শুভ প্রমুখ।
প্রতিনিধি সম্মেলনে বক্তারা বলেন, মাত্র কয়েক বছর আগেও বিশ্বে বাংলাদেশ একটি ক্ষুধা, দারিদ্র এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগপীড়িত দেশ হিসেবে পরিচিত থাকলেও জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজ তা উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বীর মুক্তিযোদ্ধারা ভাতা পায়, বিধবারা ভাতা পায়, গর্ভবতী মায়েরা ভাতা পায়, প্রতিবন্ধীরা ভাতা পায়, আদিবাসী শিক্ষার্থীরা ভাতা পায়, শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে বই পায়। অচিরেই মানুষের ৫টি মৌলিক অধিকার সম্পূর্ণ প্রতিষ্ঠা হবে। এমনকি গৃহহীনরা এখন মাথা গোজার ঠাঁই পাচ্ছে। বর্তমানে দেশের প্রায় ৯০ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছে। আওয়ামী লীগ সরকার কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র ও পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ করেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় জনগণের আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থার উন্নতি হয়েছে। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান।



সংবাদটি 230 বার পড়া হয়েছে.সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •