প্রচ্ছদ

জ্বীনের বাদশা পরিচয়ে জগন্নাথপুরে সাড়ে তিনকোটি টাকা আত্মসাৎ. গ্রেপ্তার ৩

২৭ এপ্রিল ২০১৯, ০৭:০৯

সোনালী সিলেট

সোনালী সিলেট ডেস্ক ::: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে জ্বীনের বাদশা পরিচয় দিয়ে এক ব্যবসায়ীর নিকট থেকে সাড়ে তিন কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে নেত্রকোনা থেকে তিনজনকে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

শুক্রবার গ্রেপ্তারকৃত তিনজনকে সুনামগঞ্জ জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, হাফিজ কামরুল ইসলাম, তার বাবা আব্দুল কাদির ও মা রেনু বেগম।

থানা পুলিশ জানায়, জগন্নাথপুর বাজার উপজেলা সদরের জগন্নাথপুর বাজারের হোটেল ও স্যানিটারি মালামাল বিক্রেতা উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের মক্রমপুর গ্রামের বাসিন্দা মাওলানা এমরান আহমদে সঙ্গে ২০১৮ সালে জগন্নাথপুর উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের এনামুল হকের মাধ্যমে পরিচয় হয় নেত্রকোনা জেলার বারহাট্রা গ্রামের হাফিজ কামরুল ইসলামের সঙ্গে। কামরুল ইসলাম সৈয়দপুর গ্রামের লন্ডন প্রবাসি রহমত আলীর বাড়ীতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতেন।

মাওলানা এমরান আহমদ জানান, কামরুল ইসলাম নিজেকে জ্বীনের সাথে সুসম্পর্ক রয়েছে বলে জানায়। সে আমাকে জানায়, তাঁর ঘরে বিভিন্ন ড্রামে ১৫০০ কোটি টাকা রয়েছে। সে টাকা নিতে হলে জ্বিনের জন্য শিরনী হিসেবে সাড়ে তিন কোটি টাকা দিতে হবে। এই ফাঁদে ফেলে ১৫ শ কোটি টাকা দেয়ার কথা বলে বিভিন্ন কিস্তিতে সাড়ে তিন কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। এবিষয়ে আমি থানায় মামলা দায়ের করি।

জগন্নাথপুর থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, ব্যবসায়ী এমরান আহমদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার কুট বটতল গ্রামে অভিযান চালিয়ে হাফিজ কামরুল ইসলাম তাঁর বাবা আব্দুল কাদির ও মা রেনু বেগমকে গ্রেপ্তার করি।

জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) নব গোপাল দাস বলেন, পুলিশ ঘটনাটি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছে। এ ঘটনায় ৬ টি ড্রাম উদ্বার করেছে। ওই ড্রামগুলোতে কাপড় ছোপর পাওয়া গেছে।

সংবাদটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com